ছবি ভিডিও

বাংলাদেশ বুধবার 22, November 2017 - ৮, অগ্রাহায়ণ, ১৪২৪ বাংলা

শ্রীমঙ্গল স্কুলে ইসলাম ধর্ম শিক্ষা বই পড়াচ্ছেন হিন্দু শিক্ষক

অনলাইন ডেস্ক: | প্রকাশিত ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৫:৫৬:৪৮

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি : মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলায় ১৯টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ধর্মীয় শিক্ষকের তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে। এসব বিদ্যালয়ে হিন্দু শিক্ষকদের দিয়ে ইসলাম শিক্ষার ক্লাস নেয়া হচ্ছে। শিক্ষা অফিসে ধর্মীয় শিক্ষক চেয়ে অনেক আবেদন করেও কোনো ফল পাওয়া যাচ্ছে না। এ কারণে ছাত্র ও অভিভাবকদের মাঝে তীব্র ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে। অথচ শিক্ষা অফিস কর্তৃপক্ষ বলছেন, প্রাথমিক শিক্ষাব্যবস্থায় এতে কোনো অসুবিধা হচ্ছে না। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, শ্রীমঙ্গল উপজেলায় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সংখ্যা ১৩৮টি। এর মধ্যে ৬৬টি সম্পূর্ণ সরকারি এবং নতুন জাতীয়করণ ৫৭টি। সরকারি ১৩৮টি স্কুলের বিপরীতে ১৫৯ জন ধর্মীয় শিক্ষক কর্মরত থাকলেও এর মধ্যে ১৯টি স্কুলে কোনো ধর্মীয় শিক্ষক নেই। উল্লেখিত ১৩৮টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অনুমোদিত শিক্ষক-শিক্ষিকার ৬৪৯টি পদের বিপরীতে শিক্ষক শিক্ষিকার সংখ্যা ৫৪৬। শূন্যপদের সংখ্যা ১০৩টি। এর মধ্যে নারী শিক্ষক ৩৯০ জন ও পুরুষ ১৫৬ জন।

শিক্ষা অফিসের দেয়া তথ্যমতে, উপজেলা ১৩৮টি সরকারি স্কুলের মোট ২০ হাজার ৩ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে মুসলিম শিক্ষার্থী প্রায় ৬৫ শতাংশ। এর মধ্যে মুসলমান শিক্ষকের সংখ্যা ১৫৯ জন এবং হিন্দু শিক্ষক রয়েছেন ৩৮৭ জন। মুসলিম শিক্ষক নেই এমন স্কুলগুলো হলো, সুইলপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, চাতল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, গন্ধর্বপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ভীমসী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মনারগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বরুনা ফয়জুর রহমান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, নয়নশ্রী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, উত্তর জিলাদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, পূর্ব জামসী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, তিতপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, শাসন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বালিশিরা খাসিয়া পুঞ্জি সরকারি প্রাথমিক
বিদ্যালয়, কৃষ্ণরাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, রায়পরান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, উত্তর পাঁচাউন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মাকড়িছড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, পশ্চিম আশিদ্রোন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কামাসিদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও শ্রীমঙ্গল হাউজিং এস্টেট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। বালিশিরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক ছাত্রের অভিভাবক মনির মিয়া ক্ষোভ প্রকাশ করে মানবজমিনকে বলেন, একটি স্কুলে সব ধর্মের শিক্ষার্থীই থাকে। প্রত্যেক ধর্মেরই শিক্ষক স্কুলে থাকা বাঞ্ছনীয়। সেক্ষেত্রে স্কুলে মুসলিম শিক্ষক না থাকাটা খুবই বেদনাদায়ক।

মুসলিম শিক্ষক সংকটের কারণ অনুসন্ধানে দেখা গেছে, উপজেলার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মধ্যে যে ১৯টি স্কুলে মুসলিম শিক্ষক নেই তার সবগুলো প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে। অনেক স্কুলে প্রায় ৮৭ ভাগ মুসলিম শিক্ষার্থীর বিপরীতে সেখানে অনুপাতিক হারে মুসলিম শিক্ষক পদায়ন বা নিয়োগ দেয়া হয়নি। যে কারনে এসব স্কুলে শিক্ষক পোস্টিং দিলেও কর্মস্থলে যোগ দেয়ার আগেই অনেক শিক্ষক তদবির করে বদলির আদেশ প্রত্যাহার করে নেন। এছাড়া রাজনৈতিক বিবেচনায় শিক্ষক পদায়নের কারণেও উপজেলার সরকারি প্রাথমিক স্কুলগুলোতে পর্যাপ্ত শিক্ষক থাকা সত্ত্বেও ভারসাম্য রক্ষা করা সম্ভব হচ্ছে না। এ ব্যাপারে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মোশারফ হোসেন মানবজমিনকে বলেন, আমাদের প্রাথমিক স্কুলের শিক্ষকরা অনেকেই উচ্চশিক্ষিত।

তাছাড়া প্রাথমিক শিক্ষকদের সকল বিষয়ের ওপর পুরোপুরিভাবে ট্রেন্ডআপ করার কারণে তারা হিন্দু ধর্মাবলম্বী হলেও শিক্ষার্থীদের ইসলাম শিক্ষা দিতে তাদের কোনো সমস্যায় পড়ার কথা নয়। তিনি বলেন, প্রতিটি স্কুলে একজন করে মুসলিম শিক্ষক নিয়োগ নিশ্চিত করতে উপজেলা সমন্বয় সভায় ও বিভাগীয় পর্যায়ে আলোচনা হয়েছে। তাছাড়া ইউনিয়ন পর্যায়েও শিক্ষক পাওয়া যাচ্ছে না।


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন


এ সম্পর্কিত খবর

বদরুলের দ্রুত শাস্তির দাবিতে সিলেটজুড়ে বিক্ষোভ

বদরুলের দ্রুত শাস্তির দাবিতে সিলেটজুড়ে বিক্ষোভ

কলেজছাত্রী খাদিজার ওপর হামলাকারী ছাত্রলীগ নেতা বদরুলের দ্রুত ও সর্বোচ্চ শাস্তি চায় সিলেটবাসী। এই

'স্বল্প সময়ের মধ্যেই জঙ্গিবাদ নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে'

'স্বল্প সময়ের মধ্যেই জঙ্গিবাদ নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে'

বাংলাদেশের মানুষ ধর্মভীরু হলেও ধর্মান্ধ নয়। এ দেশের মানুষ কখনোই জঙ্গিবাদকে সমর্থন দেয়নি। দেশের মানুষের

খাদিজার হামলাকারি বদরুল আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে

খাদিজার হামলাকারি বদরুল আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে

সলেট প্রতিনিধি: আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন সিলেটে কলেজছাত্রী খাদিজা আক্তার নার্গিসকে হত্যাচেষ্টাকারী বদরুল আলম


হাসপাতাল থেকে থানায় নেয়া হয়েছে বদরুলকে,উত্তপ্ত সিলেট

হাসপাতাল থেকে থানায় নেয়া হয়েছে বদরুলকে,উত্তপ্ত সিলেট

সিলেটের কলেজ ছাত্রী খাদিজা আক্তার নার্গিসের উপর হামলাকারী বদরুলকে চিকিৎসা শেষে শাহ পরান থানায় নেয়া

খাদিজার জীবন–সংকটে

খাদিজার জীবন–সংকটে

রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন কলেজছাত্রী খাদিজা বেগম। অস্ত্রোপচার শেষে গতকাল বিকেলে তাঁকে ৭২ ঘণ্টার নিবিড়

শিক্ষামন্ত্রীকে অবরুদ্ধ করেছে গার্হস্থ্য অর্থনীতির শিক্ষার্থীরা

শিক্ষামন্ত্রীকে অবরুদ্ধ করেছে গার্হস্থ্য অর্থনীতির শিক্ষার্থীরা

গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট ঘোষণার দাবিতে রাজধানীর জাতীয় শিক্ষাতথ্য ও পরিসংখ্যান ব্যুরো (ব্যানবেইস)


ছাত্রীকে আক্রমণকারী ছাত্রলীগ নেতার বিচার হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ছাত্রীকে আক্রমণকারী ছাত্রলীগ নেতার বিচার হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

 সিলেট মহিলা কলেজের শিক্ষার্থী খাদিজা বেগমকে ছুরিকাঘাতের ঘটনায় অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা কোনোভাবেই পার পাবে না

ছাত্রলীগ নেতার হামলায় আহত ছাত্রীর অবস্থা আশঙ্কাজনক

ছাত্রলীগ নেতার হামলায় আহত ছাত্রীর অবস্থা আশঙ্কাজনক

সিলেটে ছাত্রলীগ নেতার হামলার শিকার ছাত্রীর অবস্থা আশঙ্কাজনক। গতকাল সোমবার বিকেলে সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের

ছাত্রলীগ নেতার শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভে উত্তাল এমসি কলেজ

ছাত্রলীগ নেতার শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভে উত্তাল এমসি কলেজ

খাদিজাকে ছুরিকাঘাতের সময় জনতার হাতে আটক বদরুল : ফাইল ছবি কলেজছাত্রী খাদিজা বেগম নার্গিসের ওপর



আরো সংবাদ



রাঙামাটিতে ভবন ধসে নিহত ৩

রাঙামাটিতে ভবন ধসে নিহত ৩

০৪ অক্টোবর, ২০১৬ ২২:১৪











ব্রেকিং নিউজ












খাদিজার জীবন নিয়ে এখনো আশঙ্কা

খাদিজার জীবন নিয়ে এখনো আশঙ্কা

০৫ অক্টোবর, ২০১৬ ১৫:৫৪